শুক্রবার, ৩১ মে ২০২৪
 

পাথরঘাটায় ইউপি সদস্য দল পরিবর্তন করেই ভাইদের জমি দখলের অভিযোগ

অনলাইন ডেস্ক
প্রকাশ: ২১ এপ্রিল ২০২৪

---

মোঃ জিয়াউল ইসলাম
বরগুনার পাথরঘাটায় বাবার সমম্পত্তি ভাগাভাগি নিয়ে তিন ভাইয়ের শক্রতা এখন চরমে পৌছেছে। হামলা মামলা এখন ভাইদের মধ্যে নিয়মিত বিষয়। উপজেলার নাচনাপাড়া ইউনিয়নের কেরামতপুর বাজারের বাসষ্টান্ডে ডাক্তার শাহজাহান, জাহাঙ্গীর ও শাহ আলমের মধ্যে এই ঘটনায় এলাকার মানুষও এখন অতিষ্ট।

ছোট ভাই জাহাঙ্গীর হোসেন জানান, তার মেজ ভাই শাহ আলম ইউপি সদস্য হয়ে ও গত সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগে যোগদান করে তাদের ওপর বেপরোয়া হয়ে প্রায়ই দলীয় লোকজন নিয়ে নির্যাতন করে । তাদের পৈত্তিক সম্পত্তি শাহ আলম একা বিক্রি করে নির্বাচনে খরচ করে এখন আমাদের সম্পত্তি জোর করে দখল নিয়ে তার মেয়ে জামাইদের বুঝিয়ে দিচ্ছে। আমরা বাধা দিতে গেলে আমাকে মারধর করেছে।

বড় ভাই শাহজাহান ডাক্তার অভিযোগ করেন, তার মেজ ভাই আগে বিএনপির নেতা ছিলেন ও চারবার বিএনপির সমর্থনে মেম্বার নির্বাচিত হয়। এখন ভাইদের জমি দখল করতে গত সংসদ নির্বাচনে আ’লীগে যোগদান করে, দলীয় ছেলেদের নিয়ে বিরোধীয় জমিতে নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে রাতের আধারে ঘর তুলছে শাহ আলম মেম্বর। স্থানীয় বাসিন্দারা জানান আমরা জানি এই জমি তাদের পৈত্তিক সম্পত্তি এখানে শাহআলম মেম্বর রাতের আঁধারে জোড় করে দখল করা ঠিক হয়নি। শাহজাহান এর স্ত্রী জানান, আমার দেবর শাহআলম মেম্বর জমি দখল করতেই আওয়ামী লীগে যোগদান করে। তিনি আরো জানান আমার শ্বশুর বাড়ি এই এলাকা মধ্যে বিএনপি পরিবার হিসাবে চিহ্নিত। এ কারনে শাহআলম মেম্বর রাতারাতি দল পরিবর্তন করে তার দলীয় লোকজন দিয়ে আমাদের উপর নির্যাতন করছে। আমরা এর বিচার চাই।

এ দিকে শাহ আলম মেম্বর জনান, আমি শালিশগনের রোয়েদাত অনুযায়ী আমার জায়গায় ঘর তুলছি। তবে নিষেধাজ্ঞার পর আমি কোন জায়গায় কাজ করেনি। আমার দুই ভাই যা বলে তা অসত্য কথা। বিএনপিতে আমার কোন নাম নেই এবং আমি আওয়ামী লীগের যোগদান করি নাই।

পাথরঘাটা থানার এস আই শাহজাহান মিয়া জানান, পাথরঘাটা নির্বাহী কোর্টের আদেশ বলে ঘটনা স্থালে আমি নিশেধাজ্ঞা জারি করেছি পরে কি হয়েছে আমি জানি না। কে নিষেধাজ্ঞা অমান্য করলে তার বিরদ্ধে ব্যাবস্থা নেয়া হবে বলে তিনি জানান।

মন্তব্য

পঠিতসর্বশেষ

এলাকার খবর

Developed By: Dotsilicon